২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

December 8, 2019, 5:17 pm

নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিবের কাজিপুরে নদী বন্দর পরিদর্শন

মোঃ শফিকুল ইসলাম কাজিপুর প্রতিনিধিঃ শনিবার সকালে সিরাজগঞ্জ জেলার কাজিপুর উপজেলা সদর এর পার্শ্ববর্তী “মেঘাই ঘাট- নাটুয়ার পাড়া” নদী বন্দর পরিদর্শন করেন নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম। তার সাথে সফর সঙ্গী ছিলেন বি আইডব্লিউটিএ’র পরিচালক (সি এন্ড পি) মোঃ শাহজাহান, অতিরিক্ত পরিচালক (বন্দর) মুহাম্মাদ রফিকুল ইসলাম,অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী (ড্রেজিং) মোঃ রফিকুল ইসলাম তালুকদার এবং তত্ত্বাধায়ক প্রকৌশলী (সিভিল) মোঃ সাজেদুর রহমান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কাজিপুরের উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদ হাসান সিদ্দিকী, উপজেলা চেয়াম্যান খলিলুর রহমান সিরাজী, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্জ্ব মোজাম্মেল হক বকুল সরকার, ভাইস চেয়ারম্যান দ্বীন মোহাম্মাদ বাবলু, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্জ্ব শওকত হোসেন সাকার, কাজিপুর সদর ইউপি চেয়ারম্যান টিএম আতিকুর রহমান, নাটুয়ারপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান চাঁন। নদীর দু-পাড়ের এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তি বর্গ সহ সর্বসাধারণ।
কাজিপুর বাসীর অনেক দিনে প্রত্যাশা পূরণ হতে চলেছে, কাজিপুর বাসীর স্বপ্ন ছিল কাজিপুর যমুণার করাল গ্রাস থেকে রক্ষা পাবে এবং একটি নদী বন্দর প্রতিষ্ঠিত হবে। তারই ধারাবাহিকতায় সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মাদ নাসিম এমপি মহোদয়ের একান্ত প্রচেষ্টায় সাবেক নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খানের সহযোগীতায় বর্তমান নৌ পরিবহন মন্ত্রীর সুদৃষ্টি থাকায় এই নদী বন্দর বাস্তবে রূপদান পেতে যাচ্ছে ৩২ নং নৌ বন্দর। সফরত অতিথিগন নাটুয়ার পাড়া নদী ঘাটে মতবিনিময় কালে কাজিপুরের পক্ষে কিছু দাবি তুলে ধরেন বর্তমান ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মহোদয়গন । দাবিগুলো হলো- কাজিপুর যমুনা নদীর তীর সংরক্ষন করে বন্দরের জায়গাটা স্থায়ীকরন এবং যেখানে একটি রাস্তা সরিষাবাড়ী জামালপুর হয়ে ঢাকার সাথে কাজিপুরের যোগাযোগ স্থাপিত হয়। যাতে করে মেঘাইঘাট- নাটুয়ারপাড়া নদী বন্দর হয়ে উত্তর বঙ্গের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করা সম্ভব হয়। পূর্বাংশের জনপ্রতিনিধিগন দ্রুত নদী ঘাটে একটি পল্টুন স্থাপনের আহ্বান করলে বিআইডব্লিউটিএ’র পরিচালক (সি এন্ড পি) মোঃ শাহজাহান আগামী দুমাসের মধ্যেই নাটুয়ার পাড়া ঘাটে একটি পল্টুন স্থাপনে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। এসময় কাজিপুরের সন্তান নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম এ বিষয়ে ভূমিকা রেখেছেন, তিনি এই বিজয়ের মাসেই পল্টুন স্থাপনে জন্য কর্তৃপক্ষকে অহ্বান জানান। যাতে করে ওপারের জনগন যাতায়াতের সুবিধা হয়।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর