১৮ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

April 1, 2020, 5:17 am

ছাতকে সাঁড়াশি অভিযান অব্যাহত-ফের ছয় দোকানে ৩৪ হাজার টাকা জরিমানা

সাইফ উল্লাহ, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:: করোনা ভাইরাসের কারণে আতঙ্ক ছড়িয়ে বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে অসাধু ব্যবসায়ীরা। সুনামগঞ্জের ছাতকে বিভিন্ন হাঠ-বাজারে অতিরিক্ত দামে পণ্য বিক্রি করছে এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভ্রাম্যমান আদালত এ অভিযান পরিচালনা করে লাখ লাখ টাকা জরিমানা করা হচ্ছে। কোথাও কোথাও দেয়া হয় বিনাশ্রম কারাদন্ড। তবে উপজেলায় অব্যাহত অভিযানের খবর পেয়ে অসাধু ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ করে পালিয়ে যেতে শুরু করেছে বলে জানা গেছে। উপজেলার নোয়ারাই বাজারে ভ্রাম্যমান আদালতে পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রিট তাপস শীল। এসময় নোয়ারাই বাজারে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। এসময় অতিরিক্ত দাম রাখায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ মোতাবেক, এরশাদ স্টোর, শিবলু স্টোর, ফুলতলী স্টোরকে মোট ৩০হাজার টাকা ও নোয়ারাই ৪ নং বাজারে তিনটি দোকানে মোট ৪ হাজার টাকাসহ মোট ৩৪ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। এ সময় ছাতক থানার এস আই ইয়াছিন ও পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। এদিকে করোনা আতষ্কের মধ্যেও ঝুঁকি নিয়ে সাঁড়াশি অভিযান অব্যাহত রাখায় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রিট তাপস শীল ও পুলিশ সদস্যদের ভূয়ুসী প্রসংশা করে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ভোক্তাসাধারন। পাশা-পাশি এ অভিযান অব্যাহত রাখার দাবি জানান তারা। এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রিট তাপস শীল অর্থদন্ড প্রদানের সত্যতা নিশ্চিত কওে বলেন, করোনা পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ক্রমাগত দাম বাড়িয়ে যাচ্ছেন। এটা কোন কোন ভাবেই কাম্য নয়। তিনি আরো বলেন, নিত্যপণ্যে মুল্য সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখার জন্য অভিযান অব্যাহত থাকবে। কঠিন পরিস্থিতিতে একইসাথে নিরলসভাবে কাজ করায় ছাতক থানা পুলিশ সদস্যদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।
করোনাভাইরাসের কারণে আতঙ্ক ছড়িয়ে বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে অসাধু ব্যবসায়ীরা।  সুনামগঞ্জের ছাতকে বিভিন্ন হাঠ-বাজারে অতিরিক্ত দামে পণ্য বিক্রি করছে এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভ্রাম্যমান আদালত এ অভিযান পরিচালনা করে লাখ লাখ টাকা জরিমানা করা হচ্ছে। কোথাও কোথাও দেয়া হয় বিনাশ্রম কারাদন্ড। তবে উপজেলায় অব্যাহত অভিযানের খবর পেয়ে অসাধু ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ করে পালিয়ে যেতে শুরু করেছে বলে জানা গেছে। উপজেলার নোয়ারাই বাজারে ভ্রাম্যমান আদালতে পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রিট তাপস শীল। এসময় নোয়ারাই বাজারে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। এসময় অতিরিক্ত দাম রাখায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ মোতাবেক, এরশাদ স্টোর, শিবলু স্টোর, ফুলতলী স্টোরকে মোট ৩০হাজার টাকা ও নোয়ারাই ৪ নং বাজারে তিনটি দোকানে মোট ৪ হাজার টাকাসহ মোট ৩৪ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। এ সময় ছাতক থানার এস আই ইয়াছিন ও পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।এদিকে করোনা আতষ্কের মধ্যেও ঝুঁকি নিয়ে সাঁড়াশি অভিযান অব্যাহত রাখায় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রিট তাপস শীল ও পুলিশ সদস্যদের ভূয়ুসী প্রসংশা করে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ভোক্তাসাধারন। পাশা-পাশি এ অভিযান অব্যাহত রাখার দাবি জানান তারা।এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রিট তাপস শীল অর্থদন্ড প্রদানের সত্যতা নিশ্চিত কওে বলেন, করোনা পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ক্রমাগত দাম বাড়িয়ে যাচ্ছেন। এটা কোন কোন ভাবেই কাম্য নয়। তিনি আরো বলেন, নিত্যপণ্যে মুল্য সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখার জন্য অভিযান অব্যাহত থাকবে। কঠিন পরিস্থিতিতে একইসাথে নিরলসভাবে কাজ করায় ছাতক থানা পুলিশ সদস্যদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। 

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর