২৬শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

July 10, 2020, 9:14 pm

চৌহালীতে নৌকাডুবির ঘটনায় আরোও ৯ জনের লাশ উদ্ধার, নিখোঁজ আরোও ১০ জন

বিশেষ প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের যমুনা নদীতে ৭০ জন যাত্রী নিয়ে মঙ্গলবার সকালে একটি ইঞ্জিন চালিত যাত্রীবাহী নৌকা ডুবে যায়। বৃহস্পতিবার সকালে আরোও চার জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ নিয়ে সর্বমোট ৯ জনের লাশ উদ্ধার করা হলো। ৫৭ জনকে জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।  ঘটনার দিনমঙ্গলবার পর্যন্ত তিন জনের লাশ উদ্ধার করেছেন উদ্ধারকারী ।  উদ্ধারকৃতরা হলো বেলকুচি উপজেলার গয়নাকান্দি গ্রামের অধিবাসী ধানকাটার শ্রমিক পাষান আলী ফকির(৬৫) ও টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার সূবর্ণতলী গ্রামের আবদুল মজিদের ছেলে ওয়েল্ডিং মিস্ত্রি শেখ কামাল হোসেন মোল্লা (৪০) কলাগাছি গ্রামের শামীম হোসেনের ছেলে নাঈমুল ইসলাম(৪)।
 বুধবার সকালে যমুনার চরাঞ্চল থেকে শাহজাদপুর উপজেলার কৈজুরি ইউনিয়নের কৈজুরি গ্রামের আদিবাসী আমজাদ হোসেন(৪১) ও আজিজুল হক মোল্লা (৪০) নামের  আরোও দুই জনের লাশ উদ্ধার করেছে স্থানীয়রা।
বিষয়টি নিশ্চিত করে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আব্দুল নূর  জানান, দুপুরে এনায়েতপুর থানার নিকটবর্তী ঘাট থেকে যাত্রীবাহী ইঞ্জিন চালিত দুর্ঘটনায় ডুুুবে যাওয়া নৌকাটি প্রায় ৭০ জন যাত্রী নিয়ে চৌহালির উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। নৌকাটিতে বেশিরভাগ যাত্রীই ছিলো ধান কাটা শ্রমিক। তাদের টাঙ্গাইলের করোটিয়ায় যাওয়ার কথা। দুপুর পৌনে ২টার দিকে নৌকাটি দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছলে প্রবল বাতাস ও ঢেউয়ের কবলে পড়ে যমুুনায় ডুবে যায়। লকডাউন উপেক্ষা করে স্থানীয় কিছু অসাধু নৌকা মালিক চৌহালীর ও এনায়েতপুর নৌকা ঘাট ব্যবহার করে ঢাকা থেকে সিরাজগঞ্জের বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষকে অবৈধ ভাবে পারাপার করে আসছে। 

বৃহস্পতিবার সকালে চৌহালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) দেওয়ান মওদুদ আহম্মেদ জানান, সকালে খাস কাউলিয়ার চর, পয়লার চর ও স্থলচর এলাকা থেকে ভাসমান অবস্থায় তিনজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পরে আরও একজনের লাশ পাওয়া যায়। তাদের নামপরিচয় পাওয়া যায়নি। চারজনকে নিয়ে নৌকাডুবির ঘটনায় মোট নয়জনের লাশ উদ্ধার করা হলো। নৌকাডুবির ঘটনায় এখন পর্যন্ত দশ জন নিখোঁজ রয়েছে।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর