২রা কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

October 17, 2020, 10:05 am

ফুলবাড়ীতে আমন ক্ষেতে পোকার আক্রমণ

মাহফুজ, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে চলতি আমন মৌসুমে ধানের ক্ষেতে নানা ধরণের রোগবালাই ও পোকার আক্রমণ দেখা দিয়েছে। আমন চাষের মাঝামাঝি সময়ে এসে ফসলের এমন পরিনতিতে কৃষকগণ চরম দুশ্চিন্তার পড়েছেন। চারা রোপনের পর থেকে কৃষাণ-কৃষাণীর পরম যত্নে সবুজ সতেজতায় বেড়ে ওঠে চারা গাছ গুলো।সবুজের ঢেউ খেলা করে আমনের ক্ষেতজুরে। কৃষকরাও ভাল ফলনের আশায় বুক বাঁধেন।  ফসল ঘরে তুলে নবান্ন উৎসবে মেতে ওঠার স্বপ্ন দেখেন তারা। তবে তাদের আশার পাতে ছাঁই। স্বপ্নের ধান ক্ষেতে হানা দিয়েছে নানা ধরনের পোকা-মাকড়সহ রোগবালাই। মাজরা, পাতা মোড়ানো, গাছের গোড়ায় পঁচন,  খোলপোড়াসহ নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে সবুজ ক্ষেত এখন হলদে বিবর্ণ হয়ে গেছে। পোকার আক্রমণ থেকে রেহাই পেতে নানা ধরনের কীটনাশক প্রয়োগ করছেন  কৃষকরা। উপজেলার বড়ভিটা গ্রামের কৃষক আশরাফুল আলম ও আবুল হোসেন বলেন, বন্যার কারণে এবারে আমন চারা একটু দেরিতে রোপন করা হলেও অল্প দিনেই তা বেশ স্বাস্থ্যবান ভাবেই বেড়ে ওঠে। আমন চাষাবাদের  মাঝামাঝি সময়ে এসে হঠাৎ দেখা দিয়েছে রোগবালাইসহ পোকা-মাকড়ের উপদ্রব। ফলে আশানুরূপ ফসন পাওয়া নিয়ে চিন্তায় আছি।  উপজেলার চন্দ্রখানা  গ্রামের কৃষক বাবুল সরকার ও ফরিদ উদ্দিন বলেন, রোগবালাই ও পোকা-মাকড়ের আক্রমনে ক্ষেতের ধান গাছ মরে যাচ্ছে। পোকা নিধনে বিভিন্ন কীটনাশক প্রয়োগ করে কোন ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে না দিনেদিনে ফসলের অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছে।
উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আশরাফুল আলম বলেন চলতি মৌসুমে কিছু সংখ্যক জমিতে রোগবালাই ও পোকামাকড়ের উপদ্রব দেখা দিয়েছে। পাতা মোড়ানোর জন্য কার্টাপ ও প্লোরোপাইরিফস এবং কার্বারিল গ্রুপের ওষুধ স্প্রে করা হলে ভালো ফলাফল আসতে পারে। খোলপোড়া রোধে হেক্সাকোনাজল ও টেবুকোনাজল এবং প্রবিকোনাজল গ্রুপের ঔষধ স্প্রে করার পরামর্শ দিয়ে আসছি। এসব ঔষধ অনুমোদিত মাত্রায় প্রয়োগ করে আমন ক্ষেত রোগবালাই মুক্ত করা সম্ভব।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহাবুবুর রশীদ বলেন, চলতি বছরে আমন ক্ষেতে রোগবালাই ও পোকা-মাকড়ের উপদ্রব কম রয়েছে। আমরা কৃষকদের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছি। উপজেলায় বিক্ষিপ্তভাবে কোন কোন ধান ক্ষেতে মাজরা,খোলপোড়া রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে।আমরা কৃষকদের বালাইনাশক স্প্রে করার পরামর্শ দিয়েছি।আশা করি অল্পদিনের মধেই আক্রান্ত ক্ষেতগুলি স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসবে। পাশাপাশি কৃষি সেবা কৃষকের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে আমরা মাঠ পর্যায়ে কাজ করে যাচ্ছি এবং আমন ক্ষেতে রোগবালাই রোধে কৃষকদের কৃষি পরামর্শ দিতে সকল উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর