,

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইসলামকে খুব ভালবাসতেন — এমপি রতন

সাইফ উল্লাহ::
সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলায় ৩ দিন ব্যাপী উন্নয়ন মেলার সমাপ্তি ঘোষনা করা হয়েছে। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় প্রধান অতিথি সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন সমাপনী বক্তব্যের মাধ্যমে আনুষ্টানিক ভাবে সমাপ্তি ঘোষনা করেন। তিনি উপজেলায় মেলায় অংশ গ্রহণকারী সকল প্রতিষ্ঠানকে আন্তরিক অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞা জানান। স্বাস্থ্য সেবায় বতর্মান সরকারের আমলে অনেক দূর এগিয়ে গিয়েছে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স‘র এম্বুল্যান্স চালু করার জন্য ১ লক্ষ টাকা প্রদান করেন। এলজিডি ইঞ্জিনিয়ারের মাধ্যমে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিষ্কার-পরিছন্ন করার ঘোষনা দেন। কৃষিতে বতর্মান সরকার প্রায় ৩০ হাজার কৃষককে কৃষি ভর্ত্তুকি দেওয়ায় প্রধান মন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদালয়ে বছরের প্রথম দিনে কোমলমতি ছেলে মেয়েদের হাতে বতর্মান সরকার বই তুলে দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। আগে বলা হত কোথায় বিদ্যুত আছে আর বতর্মানে বলা হচ্ছে কোথায় বিদ্যুত নেই। ২০১৮ সালের মধ্যে প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুত পৌছে যাবে। তাহিরপুর যাদুকাটা নদীতে ব্রীজ হওয়ার ট্রেন্ডার হয়ে গেছে কিছু দিনে মধ্যে কাজ শুরু হয়ে যাবে। জামালগঞ্জ মডেল উচ্চ বিদ্যালয়কে সরকারী করণ করা হয়েছে। জামালগঞ্জ ডিগ্রী কলেজকে বিশ^বিদ্যালয় কলেজ করা হয়েছে। সারা বাংলাদেশে ৩টি হোষ্টেলের মধ্যে জামালগঞ্জ বিশ^বিদ্যালয় কলেজ ও জামালগঞ্জ বালিকা বিদ্যালয়ে ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ২ টি হোষ্টেল স্থাপন করা হয়েছে। ফ্যাসিলিটেস্ট ডিপার্টমেন্ট‘র মাধ্যমে অনেকগুলো বিদ্যালয়ে ৪ তালা ভবণ করা হয়েছে। নতুন প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা‘র উন্নয়ন সম্বন্ধে ধারণা দিতে হবে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অলিখিত ৭ ই মার্চের ভাষণ ইউনেসকোতে স্থান পাওয়ায় সারা বিশে^র মানচিত্রে বাংলাদেশের সম্মান বয়ে এনেছে। পুলিশ প্রশাসনে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইসলামকে খুব ভালবাসতেন তারেই ধারাবাহিকতায় জননেত্রী শেখা হাসিনা কওমি মাদ্রাসা বোর্ডকে সরকারী স্বৃক্রীতি দিয়েছেন। এই সরকার মুক্তিযোদ্ধের স্বপক্ষের সরকার তাই মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের চাকুরী থেকে শুরু করে বিভিন্ন সম্মানে ভূষিত সহ অর্থনৈতিক ভাবে সাবলম্বী করার প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন। তাই নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযোদ্ধ সর্ম্পকে ধারণা দিতে হবে। উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ৩ দিন ব্যাপী উন্নয়ন মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আল ইমরান। উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক জামিল আহমদ জুয়েলের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজা আক্তার দিপু, সহকারী কমিশনার ভূমি মনিরুল হাসান, জামালগঞ্জ বিশ^বিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ হাবিবুর রহমান চৌধুরী, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ড. সাফায়েত আহমেদ সিদ্দিকী, উপজেলা স্বাস্থ্য প.প. কর্মকর্তা ডা. মনিসর চৌধুরী, উপজেলা প্রকৌশলী শিপলু কর্মকার, অফিসার ইনচার্জ আবুল হাসেম, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা আবু তাহের, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মাধ্যমিক মাহবুবুর রহমান, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মীর আব্দুল্লাহ আল মামুন, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা মমিনুল ইসলাম, উপজেলা আ‘লীগের সাধারণ সম্পাদক এম নবী হোসেন, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার এড. আসাদ উল্লাহ সরকার, জামালগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: লুতফুর রহমান, বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিধান ভূষন চক্রবর্তী সহ উপজেলার প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের স্ব স্ব কর্মকর্তা, কর্মচারী, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। উন্নয়ন মেলায় প্রথম স্থান অধিকার করেন, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর, তৃতীয় স্থান অধিকার করেন, উপজেলা প্রকৌশলী অধিদপ্তর। মেলায় অংশগ্রহণকারী সকল প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা পুরষ্কার প্রদান করা হয়। সব শেষে উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মেলার সমাপ্তি ঘোষনা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর