জাতীয় পার্টি আমাদের মিত্র, সহযোগী শক্তি হিসেবে কাজ করছে

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগী শক্তি হিসেবে জাতীয় পার্টি কাজ করছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ।

বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) বিকেলে রংপুরে আওয়ামী লীগের বিভাগীয় সাংগঠনিক টিমের সঙ্গে নির্বাচনী নির্দেশনা ও মতবিনিময় সভায় অংশ নিতে এসে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

জাতীয় পার্টির সঙ্গে এই নির্বাচনে জোট ও আসন বণ্টন নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, জাতীয় পার্টি আমাদের মিত্র। ১৫ বছর ধরে একসঙ্গে গণতন্ত্র রক্ষায় ও অপরাজনীতির বিরুদ্ধে আমাদের সঙ্গে কাজ করছে। এই নির্বাচনেও জাতীয় পার্টি আমাদের সহযোগী শক্তি হিসেবে কাজ করছে। জাতীয় পার্টিসহ আমরা ২০০৮ সালে নির্বাচন করেছি, ২০১৪ ও ২০১৮ সালেও জোটবদ্ধ নির্বাচন হয়েছিল। তবে এই নির্বাচনেও আলোচনা চলছে, তারা স্বাধীনভাবে নির্বাচনে অংশ নিতে প্রায় ৩০০ আসনে প্রার্থী দিয়েছে। তবে আমাদের অনেকের সঙ্গে কৌশলগত জোট হবে।

স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নির্বাচনকে প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক করতে স্বতন্ত্র প্রার্থী মাঠে আছে, তবে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কাজ করবে। দলীয় কিংবা স্বতন্ত্র প্রার্থী কোনো প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টা করলে, সেটা আমরা দলগতভাবে দেখব।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন যারা প্রতিহত করতে চেয়েছে, তারা এখন পালিয়েছে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিদেশি অনেক রাষ্ট্র যারা দ্বিধাদ্বন্দ্বে ছিল নির্বাচন পর্যবেক্ষক পাঠাবে কি পাঠাবে না, তারাসহ ইউরোপীয় ইউনিয়ন নির্বাচনে পর্যবেক্ষণ পাঠাচ্ছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিবন্ধিত ৪৪টি দলের মধ্যে ৩০টি নিবন্ধিত দল নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। প্রত্যেকটি আসনে গড়ে ৭ জন করে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বিএনপি সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন বর্জন করেছিল, তারপর সেই সব নির্বাচনে ৫০ শতাংশের বেশি ভোট পড়েছে। এবারও দেশের মানুষের অংশগ্রহণে প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ও উৎসাহব্যঞ্জক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেই সঙ্গে অনেক উন্নত দেশে যে পরিমাণ ভোটার উপস্থিতি হয় না, তার থেকে বেশি ভোটার উপস্থিতি হবে ইনশাআল্লাহ।

আরো পড়ুন  গোয়াইনঘাটে ভূমিসেবা সপ্তাহের উদ্বোধন

হাছান মাহমুদ বলেন, নির্বাচন কমিশনের অধীনে দেশের সকল রাষ্ট্রযন্ত্র কাজ করছে। নির্বাচন কমিশন যা চাচ্ছে সরকার তা বাস্তবায়ন করছে। আপনারা জানেন, ইতোমধ্যে নির্বাচন কমিশন দেশের অধিকাংশ ইউএনও, ওসিদের বদলি করেছে, অনেক ডিসি এসপিদের বদলি করেছে। অতীতে এরকম ঘটনা ঘটেনি।

পরে রংপুর জেলা পরিষদ কমিউনিটি সেন্টারে আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক টিমের উদ্যোগে নির্দেশনা ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

রংপুর জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সার্বিক সহযোগিতায় আয়োজিত সভায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ এইচ এন আশিকুর রহমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক ওয়াসিকা আয়শা খান, কেন্দ্রীয় সদস্য অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া, অ্যাডভোকেট সফুরা বেগম রুমি প্রমুখ।

সভায় আওয়ামী লীগের রংপুর বিভাগের জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ অংশ নেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *