গাজায় একদিনে ১০৯ জন নিহত

ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসের সঙ্গে অস্থায়ী যুদ্ধবিরতির সময় শেষ হওয়ার পরপরই শুক্রবার (১ ডিসেম্বর) গাজায় ব্যাপক বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। এতে একদিনে নতুন করে ১০৯ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন।

হামাস নিয়ন্ত্রিত গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে। এছাড়া বিমান হামলায় আহত হয়েছেন আরও কয়েকশ মানুষ।

গত শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) হামাসের সঙ্গে প্রথমে চারদিনের যুদ্ধবিরতিতে রাজি হয়েছিল ইসরায়েল। এরপর দুই দফায় এটির মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়। তবে গতকাল যুদ্ধবিরতির মেয়াদ বৃদ্ধির চুক্তিতে পৌঁছাতে পারেনি হামাস-ইসরায়েল। এরপর শুক্রবার সকাল থেকেই নির্বিচারে ছোট্ট এ উপত্যকায় হামলা চালানো শুরু করে দখলদার ইসরায়েলি সেনারা। এতে একদিনে একশরও বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন।

ইসরায়েলিদের নতুন হামলা থেকে বাদ যায়নি সাধারণ মানুষের ঘর-বাড়িও।

গত ৭ অক্টোবর হামাস ও ইসরায়েলের মধ্যে যুদ্ধ বাধে। দেড় মাসের বেশি সময় লড়াই চলার পর দুই পক্ষ যখন যুদ্ধবিরতিতে রাজি হয়; তখন আশা তৈরি হয়েছিল এ যুদ্ধ স্থায়ীভাবে বন্ধ হবে।

তবে ইসরায়েল প্রথম থেকেই হুমকি দিয়ে আসছিল, যুদ্ধবিরতির মেয়াদ শেষ হলেই তাদের হামলা শুরু হবে।

যুদ্ধবিরতির আগে গাজায় ১৫ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনির মৃত্যু হয়েছিল। এখন আশঙ্কা করা হচ্ছে, এই সংখ্যা আরও বাড়তে থাকবে।

গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় শুক্রবার মিসরের সীমান্তবর্তী রাফাহ ক্রসিং খুলে দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে। তারা বলেছে, গত সাতদিনের যুদ্ধবিরতিতে যে পরিমাণ চিকিৎসা সরঞ্জাম গাজায় এসেছে; সেগুলো দিয়ে আহত মানুষদের মাত্র একদিন চিকিৎসা সেবা দেওয়া যাবে।

আরো পড়ুন  গাজার খান ইউনিসের কাছে ইসরায়েলি ট্যাংক

সূত্র: আলজাজিরা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *