তাশাহহুদ শেষ করার আগে ইমাম দাঁড়িয়ে গেলে করণীয়

নামাজে বৈঠক বসা ফরজ কাজ। আর বৈঠকে তাশাহহুদ পড়া ওয়াজিব বা আবশ্যক। প্রতি দুই দুই রাকাআত পর পর বৈঠকে বসতে হয়। আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, আমরা যখন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের পেছনে নামাজ আদায় করতাম, তখন আমরা বলতাম- ‘আসসালামু আলা জিবরিলা ওয়া মিকাইলা ওয়া আসসালামু আলা ফুলান ওয়া ফুলান।’ তখন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাদের দিকে তাকিয়ে বললেন, ‘আল্লাহ তাআলা নিজেই তো সালাম। তাই যখন তোমরা কেউ নামাজ আদায় করবে, তখন সে যেন তাশাহুদ বলে…

যদি কোনো ব্যক্তি চার রাকাত বিশিষ্ট্য নামাজের দ্বিতীয় রাকাতে তাশাহুদ শেষ করার আগেই ইমাম তৃতীয় রাকাতের জন্য দাঁড়িয়ে যান, তাহলে তার জন্য করণীয় হলো- সে তাশাহুদ শেষ করে তারপর দাঁড়াবে। কেউ যদি তাশাহহুদ না পড়েই ইমামের সঙ্গে শরিক হয়ে যায় তার নামাজও হয়ে যাবে।

তবে যদি ইমামের সাথে তৃতীয় রাকাত না পাওয়ার আশংকা দেখা দেয় তাহলে তাশাহুদ না পড়েই দাঁড়িয়ে যেতে হবে। (খুলাসাতুল ফাতাওয়া : ১/১৫৯; ফাতাওয়া খানিয়া : ১/৯৬; শরহুল মুনয়া পৃষ্ঠা ৪৫৯; রদ্দুল মুহতার : ১/৪৯৬)

উচ্চারণসহ এক সঙ্গে তাশাহহুদ
মুমিন মুসলমানের উচিত নামাজের শেষ বৈঠকে বসার মাধ্যমে ফরজ আদায় করা। আর তাশাহহুদ পড়ে ওয়াজিব পালন করা জরুরি। তাই প্রত্যেকের তাশাহুদ জেনে রাখা আবশ্যক। এখানে উচ্চারণসহ তাশাহহুদ উল্লেখ করা হয়েছে।

আরবি :

التَّحِيَّاتُ لِلَّهِ وَالصَّلَوَاتُ وَالطَّيِّبَاتُ ، السَّلَامُ عَلَيْكَ أَيُّهَا النَّبِيُّ وَرَحْمَةُ اللَّهِ وَبَرَكَاتُهُ ، السَّلَامُ عَلَيْنَا وَعَلَى عِبَادِ اللَّهِ الصَّالِحِينَ ، أَشْهَدُ أَنْ لَا إِلَهَ إِلَّا اللَّهُ وَأَشْهَدُ أَنَّ مُحَمَّدًا عَبْدُهُ وَرَسُولُهُ

আরো পড়ুন  যে সুরা পাঠে মিলবে আল্লাহর ক্ষমা

উচ্চারণ : আত্তাহিইয়্যাতু লিল্লাহি ওয়াছ ছালাওয়াতু ওয়াত ত্বাইয়্যিবাতু, আসসালামু আলাইকা আইয়্যুহান নাবিয়্যু ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। আসসালামু আলাইনা ওয়া আলা ইবাদিল্লাহিছ ছালিহীন, আশহাদু আল্লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান আবদুহু ওয়া রাসুলুহু।

অর্থ : সমস্ত মৌখিক, শারীরিক ও আর্থিক ইবাদত আল্লাহর জন্য। হে নবি! আপনার প্রতি সালাম এবং আল্লাহর রহমত ও বরকত নাজিল হোক। সালাম আমাদের প্রতি এবং আল্লাহর নেক বান্দাদের প্রতি। আমি সাক্ষ্য প্রদান করছি যে, আল্লাহ ব্যতিত আর কোনো মাবুদ নাই এবং আমি আরও সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, নিশ্চয়ই মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আল্লাহর বান্দা এবং রাসুল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *