৪ ঘণ্টায় ইসিতে ১৮ আপিল আবেদন

নির্বাচনে অংশ নিতে সারা দেশের প্রার্থীদের অবৈধ হওয়া মনোনয়নপত্রের বৈধতা ফেরত পেতে আপিল কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আপিল কার্যক্রম শুরু হওয়ার ৪ ঘণ্টার মধ্যে ১৮টি আবেদন জমা পড়েছে।

মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইসির অস্থায়ী বুথের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা।

তারা জানান, সকাল ১০টায় আপিল আবেদন শুরুর পর থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত সর্বমোট ১৮টি আপিল আবেদন জমা পড়েছে। এর মধ্যে রংপুর অঞ্চলের বুথে একটি, খুলনা অঞ্চলের বুথে দুইটি, বরিশাল অঞ্চলের বুথে একটি, ময়মনসিংহ অঞ্চলের বুথে পাঁচটি, ফরিদপুর অঞ্চলের বুথে চারটি, চট্টগ্রাম অঞ্চলের বুথে দুইটি ও ঢাকা অঞ্চলের বুথে তিনটি আবেদন জমা পড়েছে।

এছাড়া, রাজশাহী অঞ্চল, সিলেট অঞ্চল ও কুমিল্লা অঞ্চলের বুথে এখন পর্যন্ত কোনো আপিল আবেদন জমা পড়েনি বলেও জানানো হয়েছে।

দেশের ৬৪টি জেলার জন্য ইসি ভবন প্রাঙ্গণে করা হয়েছে আলাদা ১০টি বুথ। সেখানে আলাদাভাবে চলছে আপিল দায়েরের কার্যক্রম।

এর মধ্যে ১ নম্বর বুথটি স্থাপন করা হয়েছে রংপুর অঞ্চলের জন্য। যেখানে পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, নীলফামারী, লালমনিরহাট
রংপুর, কুড়িগ্রাম ও গাইবান্ধা জেলার প্রার্থীরা আপিল দায়ের করছেন।

২ নম্বর বুথটি স্থাপন করা হয়েছে রাজশাহী অঞ্চলের জন্য। যেখানে জয়পুরহাট, বগুড়া, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁ, রাজশাহী, নাটোর, সিরাজগঞ্জ ও পাবনা জেলার প্রার্থীরা আপিল দায়ের করছেন।

৩ নম্বর বুথটি স্থাপন করা হয়েছে খুলনা অঞ্চলের জন্য। যেখানে মেহেরপুর, কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা, ঝিনাইদহ, যশোর, মাগুরা, নড়াইল, বাগেরহাট, খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলার প্রার্থীরা আপিল দায়ের করছেন।

আরো পড়ুন  পাঁচ বছরে ৬০ লাখ কর্মী বিদেশে পাঠানোর পরিকল্পনা : প্রতিমন্ত্রী

৪ নম্বর বুথটি স্থাপন করা হয়েছে বরিশাল অঞ্চলের জন্য। যেখানে বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, ঝালকাঠি ও পিরোজপুর জেলার প্রার্থীরা আপিল দায়ের করছেন।

৫ নম্বর বুথটি স্থাপন করা হয়েছে ময়মনসিংহ অঞ্চলের জন্য। যেখানে টাঙ্গাইল, জামালপুর, শেরপুর, ময়মনসিংহ, নেত্রকোণা ও কিশোরগঞ্জ জেলার প্রার্থীরা আপিল দায়ের করছেন।

৬ নম্বর বুথটি করা হয়েছে ঢাকা অঞ্চলের জন্য। যেখানে মানিকগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, ঢাকা, গাজীপুর, নরসিংদী ও নারায়ণগঞ্জ জেলার প্রার্থীরা আপিল দায়ের করছেন।

৭ নম্বর বুথটি স্থাপন করা হয়েছে ফরিদপুর অঞ্চলের জন্য। যেখানে রাজবাড়ী, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর ও শরীয়তপুর জেলার প্রার্থীরা আপিল দায়ের করছেন।

৮ নম্বর বুথটি স্থাপন করা হয়েছে সিলেট অঞ্চলের জন্য। যেখানে সুনামগঞ্জ, সিলেট, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জ জেলার প্রার্থীরা আপিল দায়ের করছেন।

৯ নম্বর বুথটি স্থাপন করা হয়েছে কুমিল্লা অঞ্চলের জন্য। যেখানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা, চাঁদপুর, ফেনী, নোয়াখালী ও লক্ষ্মীপুর জেলার প্রার্থীরা আপিল দায়ের করছেন।

আর সবশেষ ১০ নম্বর বুথটি স্থাপন করা হয়েছে চট্টগ্রাম অঞ্চলের জন্য। যেখানে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবান জেলার প্রার্থীরা আপিল দায়ের করছেন।

ইসি ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ছিল ৩০ নভেম্বর। ১ ডিসেম্বর থেকে বাছাই শুরু হয়, শেষ হয় ৪ ডিসেম্বর সন্ধ্যা পর্যন্ত। রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল ও শুনানি ৬-১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত এবং ১৭ ডিসেম্বরের মধ্যে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে। প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে ১৮ ডিসেম্বর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *