প্রার্থিতা বাতিল নিয়ে আপিল করতে এসে যা বললেন ডলি সায়ন্তনী

ক্রেডিট কার্ড সংক্রান্ত ক্ষুদ্র জটিলতায় মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছিল বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের (বিএনএম) মনোনীত প্রার্থী জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ডলি সায়ন্তনী। আপিলে মনোনয়ন ফিরে পাওয়ার ব্যাপারেও আশা প্রকাশ করেছেন তিনি।

মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে (ইসি) মনোনয়ন ফিরে পেতে আপিল জমা দিতে এসে এ কথা বলেন তিনি।

ডলি সায়ন্তনী পাবনা-২ (সুজানগর-বেড়ার একাংশ) আসনে বিএনএমের মনোনীত প্রার্থী। ক্রেডিট কার্ড সংক্রান্ত খেলাপি ঋণের কারণে তার মনোনয়ন বাতিল করেন পাবনা জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা মু. আসাদুজ্জামান। মনোনয়নপত্র ফিরে পাওয়ার জন্য ক্রেডিট কার্ডের বকেয়া পরিশোধ করে ইসিতে আপিল করেছেন তিনি।

ডলি সায়ন্তনী বলেন, আমার ক্রেডিট কার্ডের ছোট একটা ঝামেলা ছিল, যেটা আমার নলেজে ছিল না। বাচ্চা বাইরে পড়াশোনা করে, সেজন্য দেশের বাইরে যাওয়া-আসা করতে হয়। তাই বিষয়টি খেয়াল করিনি। এখন ক্রেডিট কার্ডের অ্যামাউন্ট পরিশোধ করে ইসিতে এসেছি।

কত টাকা বকেয়া ছিল? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, খুব কম টাকা, বলার মতো না। তবে যে অভিযোগটা এসেছে এটা আসলেই আমার ফল্ট (ভুল) ছিল। কারোর ষড়যন্ত্র দেখছি না। এটা আমি খেয়াল করিনি। তবে আশা করছি আমি মনোনয়নপত্রের বৈধতা ফিরে পাব।

ভোটের মাঠের লড়াই প্রসঙ্গে এই কণ্ঠশিল্পী বলেন, দীর্ঘ দিনের ইচ্ছা আমার এলাকার মানুষের জন্য কিছু করা। সেজন্য এলাকাবাসীসহ সবার সহযোগিতা চাই। আর বিএনএম আমাকে সে সুযোগ করে দিয়েছে, সেজন্য তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

আরো পড়ুন  বদলি হতে পারেন ২৫০ ইউএনও, ৩২০ ওসি

পরে তিনি শুনানি ও নিষ্পত্তির জন্য ইসি ভবন প্রাঙ্গণে অস্থায়ীভাবে স্থাপিত দুই নম্বর বুথে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নির্বাচনী প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ নুরুল হাসান ভূঁইয়ার কাছে আপিল আবেদন জমা দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *